শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:১১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Logo এক হাজার কোটি টাকা দেনার বিপরীতে ইভ্যালি’র ব্যাংকে মাত্র ৩০ লাখ টাকা Logo ছেলে বাবার চেয়ে ২ বছরের বড়, এলাকায় তোলপাড়! Logo খালেদার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে এ সপ্তাহে, সম্মতি প্রধানমন্ত্রীর Logo নুসরাতকে ‘নারীবাদী বিপ্লবী’ ভেবেছিলেন; দ্রুতই ভুল ভাঙল তসলিমার Logo কবুতর: বাংলাদেশে বাড়ছে দামী জাতের পালন, হচ্ছে কবুতরের রেসিং, রয়েছে কবুতরের খামার Logo চীনা নভোচারীরা তাদের সবচেয়ে দীর্ঘ মহাকাশ মিশন শেষে পৃথিবীতে ফিরেছেন Logo পরীমনি: আদালতে হাজিরা দেবার পর হাতের নতুন বার্তা নিয়ে জল্পনা কল্পনা Logo হাইটেক পার্কে কী হচ্ছে দেখতে যাবেন পরিকল্পনামন্ত্রী Logo কমেছে করোনার রোগী, স্বস্তিতে চিকিৎসক-নার্সরা । রোগীর চাপ নেই। পড়ে আছে ফাঁকা শয্যা। আজ সকালে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম হাসপাতালের দ্বিতীয় তলার এইচডিইউতে Logo দিনাজপুরে অভিযানে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫ Logo চট্টগ্রামে দ্বিতীয় কারাগারের জন্য জমি পাওয়া যাচ্ছে না Logo খেলা হবে ২০ তারিখ নৌকা মার্কায় ভোট দিন। Logo নাইক্ষ্যংছড়িতে দেশীয় চোলাই মদ সহ আটক-২ Logo গাজীপুর মহা নগরে আট লক্ষ টাকা মুক্তিপনের দাবীতে অপহরন কারী কে গ্রেপ্তার। Logo মা হওয়ার ইচ্ছা প্রভা’র, পাচ্ছে না সন্তানের বাবা! Logo নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়ল ২২ বছরের পূুরানো সেতু! Logo করোনায় চাকরি হারিয়ে সফল উদ্যোক্তা জবির সাবেক শিক্ষার্থী! Logo ফ্লাইওভার থেকে বাইক নিয়ে ছিটকে পড়লেন যুবক, মর্মান্তিক পরিণতি Logo খালেদাকে বিদেশে নিতে অপেক্ষা সবুজ সংকেতের Logo মাথায় গুলি লেগে র‌্যাব সদস্যের মৃত্যু Logo ২০২৩ সাল থেকে পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষা থাকবে না Logo নবম-দশমে গ্রুপ বিভাজন থাকবে না : শিক্ষামন্ত্রী Logo নতুন ঘরে দুই সন্তানের মা মাহিয়া মাহি Logo মাহির দ্বিতীয় স্বামী রাকিবকে আগে থেকেই চিনতেন প্রথম স্বামী Logo ফোনালাপ ফাঁস নিয়ে সাংবাদিক, বিটিআরসিসহ সবারই সজাগ থাকা দরকার: হাইকোর্ট Logo কল্যাণপুরে হবে হাতিরঝিলের মতো দৃষ্টিনন্দন জলাধার: মেয়র আতিক Logo বুধবার থেকে প্রতিদিন ৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি স্টেশন Logo সাকিবকে ছাড়িয়ে যাওয়ার অপেক্ষায় পরীমনি! Logo পুত্রসন্তানের বাবা কে, জানালেন নুসরাত Logo যে উড়াল সড়কের নাম হবে “আবদুল আলীমে”র নামে

২ বছরে ধর্ষণ বেড়েছে দ্বিগুণ, প্রয়োজন ধারাবাহিক প্রতিরোধ

জনপ্রিয় খবর প্রতিনিধি : / ৩৫ বার পঠিত
সময়: শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১, ১০:১৮ অপরাহ্ণ

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

121624897_3524280640963773_2252084355559580375_n২০২০ সালে মাসওয়ারি ধর্ষণ সংখ্যা

সাম্প্রতিক সময়ে ধর্ষণের ঘটনা ও ধর্ষণের শিকার নারীর প্রতি সহিংসতার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় আবারও আন্দোলনের মাঠ সরগরম। গত দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে দেশব্যাপী লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও নারী অধিকারকর্মীরা। তারা দ্রুততম বিচার থেকে শুরু করে সাক্ষী সুরক্ষার বিষয়গুলো নিশ্চিত করার কথা বলছেন। প্রশ্ন উঠছে, প্রতিনিয়ত ঘটে চলা ধর্ষণের ঘটনার কোনোটি ইস্যু হয়ে উঠলেই কেবল আন্দোলন হয় কেন? নারী অধিকার নেত্রীরা বলছেন, এই জায়গায় আলাপ হওয়া জরুরি। তবে আন্দোলন সবসময় হবে না। দীর্ঘদিনের ক্ষোভ জমতে জমতে বিক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে। তবে ধারাবাহিক সামাজিক প্রতিরোধ থাকতে হবে।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের উপাত্ত অনুযায়ী ২০১৭-২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯-২০২০ সালে দেশে ধর্ষণ বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। ২০১৬ সালে সারাদেশে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে ৭২৪টি, ২০১৭ সালে ৮১৮, ২০১৮ সালে ৭৩২, ২০১৯ সালে ১৪১৩ এবং ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ধর্ষণের ঘটনা পাওয়া যায় ৯৭৫টি। অর্থাৎ ২০১৯ ও ২০২০ সালে গড়ে প্রতিদিন ৪ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। যেখানে ২০১৬, ২০১৭ ও ২০১৮ সালে এই সংখ্যা ছিল দুই জন।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উপাত্ত বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় এপ্রিল থেকে ধর্ষণের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। চলতি বছরের মার্চ মাসে ধর্ষণের ঘটনার সংখ্যা ছিল বছরের সর্বনিম্ন। এই মাসে ৬৭টি ধর্ষণের ঘটনা পাওয়া যায়। এরপর প্রতি মাসেই ধর্ষণের সংখ্যা বাড়তে থাকে। এপ্রিল মাসে ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ৭৬, মে মাসে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৯৪-তে। জুনে ধর্ষণের পরিমাণ মারাত্মক হারে বেড়ে দাঁড়ায় ১৭৬-এ। যা মার্চ মাসের সংখ্যার থেকে প্রায় তিনগুণ বেশি। এরপর জুলাই ও আগস্ট মাসেও এই বৃদ্ধি জারি থাকে। জুলাই ও আগস্ট মাসে ধর্ষণের সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ১৪০টি ও ১৪৮টি। সেপ্টেম্বরে এই সংখ্যা ছিল ৮৬টি। এই হ্রাসের কারণ হিসেবে আন্দোলন ও পুলিশি তৎপরতা একটি প্রভাবক হতে পারে।

২০১৯ সালের মাসওয়ারি বিশ্লেষণেও একই প্যাটার্ন দেখা যায়। বছরের শুরুতে ধর্ষণের সংখ্যা কম থাকে কিন্তু এপ্রিল থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ধর্ষণের ঘটনা বেশি পাওয়া যায়।

এছাড়া ২০১৯ সালে পুরো বছরে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৪১৩ জন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৭৬ জনকে। এমনকি ধর্ষণের পর আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন ১০ জন। বয়সভিত্তিক চিত্রের দিকে তাকালে দেখা যায়, ৬ বছর থেকে ১৮ বছরের শিশু-কিশোরেরা সবচাইতে বেশি ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। পুরো বছরে ১৪১২ জনের মধ্যে ধর্ষণের শিকার ৫৬২ জনের বয়স আঠারো বছরের নিচে। 

ঠিক একই চিত্র ২০২০ সালেও। জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৯৭৫ জন ধর্ষণের শিকার নারীদের মধ্যে ৩৯৯ জনের বয়স আঠারোর নিচে। ধর্ষণের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণে দেখা যায় ধর্ষকদের প্রধান টার্গেটই থাকে আঠারো বছর বয়সের নিচে।

১৮ বছরের নিচে ধর্ষণের সংখ্যা বেশি কেন প্রশ্নে শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ ও অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিষ্ঠান ব্রেকিং দ্যা সাইলেন্সের প্রধান নির্বাহী রোকসানা সুলতানা বলেন, এই বয়সী কিশোরীদের বাধা দেওয়ার ক্ষমতা থাকে না। তাদেরকে নির্যাতনকারী নানা রকমের কথা দিয়ে, সম্পর্ক স্থাপন করে বশে আনতে পারে। কারণ কিশোর বয়সে বয়ঃসন্ধিকালে বাড়তি আবেগ ও কম যুক্তি কাজ করে। এবং কোনও একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে যাওয়ার পরে কিশোরীরা কারোর সঙ্গে শেয়ার করতে পারে না। তার প্রতিষ্ঠানের গবেষণার উদাহরণ টেনে তিনি আরও বলেন, এর চেয়েও কমবয়সীদের ধর্ষণ সংখ্যা বেশি দেখা যায় কারণ শিশুদেরকে পরিবারের কাছের মানুষেরা নির্যাতন করে বেশি। চকলেট বা ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক নির্যাতন করে। শিশুটি ব্যথা না পেলে বা খারাপ ছোঁয়া বিষয়ে বুঝতে না পারলে একাধিকবার তাকে ধর্ষণ করতে পারে। এবং শিশুদের ভয় দেখিয়ে চুপ করিয়ে রাখা যায়। আঠারো বছরের ওপরের ধর্ষণের ক্ষেত্রে নারীর বাধা দেওয়ার ক্ষমতা তৈরি হয়, অপরাধীকে চিহ্নিত করতে পারে।

২০১৬ থেকে ২০ পর্যন্ত ধর্ষণ সংখ্যা প্রতি বছরই দুই একটি ঘটনা আলোচিত হলেও এবারই প্রথম ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার বিষয়ে জোরালো দাবি উঠেছে। অথচ গত বছর জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ বছরের চাইতেও বেশি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ২০১৯ সালে এ সময়কালে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক হাজার ১১৫ জন আর এবছর একই সময়কালে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৯৭৫ জন নারী।

অপরাধীর মৃত্যুদণ্ড হলে ধর্ষণ কমবে বলে মনে করেন না আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সাবেক নির্বাহী পরিচালক শিপা হাফিজা। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত যে সর্বোচ্চ সাজা আছে সেটাই আমরা নিশ্চিত করতে পারিনি। মৃত্যুদণ্ড দিলে সেটি যদি কার্যকর করা সম্ভব না হয় তাহলে আইন সংশোধনের মধ্য দিয়ে আসলে কিছু পাওয়া যাবে না। তবে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয় ভয় দেখানোর জন্য। প্রশ্ন হলো, আদৌ সাজা হবে বলে ধর্ষক মনে করে কিনা।

ধর্ষণ সবসময়ই আছে তারপরও কোনও কোনও ধর্ষণের ঘটনা ইস্যু হয়ে উঠলে আন্দোলন গড়ে ওঠে কেন প্রশ্নে নারী অধিকার আন্দোলনের সঙ্গে দীর্ঘদিন যুক্ত ফৌজিয়া খন্দকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, কেন ইস্যুভিত্তিক সেটা আমরাও বিশ্লেষণের চেষ্টা করছি। তবে আন্দোলন সবসময় হবে সেটা ভাবার কোনও কারণ নেই। বহুদিনের ক্ষত যখন আপনাকে বিক্ষুব্ধ করবে তখনই মাঠে নামবেন। রাজনৈতিক আন্দোলনও ইস্যুভিত্তিকই হয়। নারী নির্যাতন দমন প্রতিরোধে আজকের যেই আইন সেটি নারী আন্দোলনের মধ্য দিয়েই আসা একটি আইন। ফলে ইস্যুভিত্তিক আন্দোলন নিয়ে সমালোচনার জায়গা নেই। প্রশ্ন হলো, আমাদের অর্জন কতোটা আনতে পারছি। 


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  

ফেসবুকে আমরা

মুজিব শতবর্ষ

সুরক্ষা অনলাই পোটার্ল

বাংলা পত্রিকাসমূহ

ইতিহাসের এই দিনে

বাংলাদেশের ৩৫০ ‍জন এমপিদের তালিকা

বিজ্ঞাপন

Web Deveoped By IT DOMAIN HOST