শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Logo এক হাজার কোটি টাকা দেনার বিপরীতে ইভ্যালি’র ব্যাংকে মাত্র ৩০ লাখ টাকা Logo ছেলে বাবার চেয়ে ২ বছরের বড়, এলাকায় তোলপাড়! Logo খালেদার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে এ সপ্তাহে, সম্মতি প্রধানমন্ত্রীর Logo নুসরাতকে ‘নারীবাদী বিপ্লবী’ ভেবেছিলেন; দ্রুতই ভুল ভাঙল তসলিমার Logo কবুতর: বাংলাদেশে বাড়ছে দামী জাতের পালন, হচ্ছে কবুতরের রেসিং, রয়েছে কবুতরের খামার Logo চীনা নভোচারীরা তাদের সবচেয়ে দীর্ঘ মহাকাশ মিশন শেষে পৃথিবীতে ফিরেছেন Logo পরীমনি: আদালতে হাজিরা দেবার পর হাতের নতুন বার্তা নিয়ে জল্পনা কল্পনা Logo হাইটেক পার্কে কী হচ্ছে দেখতে যাবেন পরিকল্পনামন্ত্রী Logo কমেছে করোনার রোগী, স্বস্তিতে চিকিৎসক-নার্সরা । রোগীর চাপ নেই। পড়ে আছে ফাঁকা শয্যা। আজ সকালে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম হাসপাতালের দ্বিতীয় তলার এইচডিইউতে Logo দিনাজপুরে অভিযানে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫ Logo চট্টগ্রামে দ্বিতীয় কারাগারের জন্য জমি পাওয়া যাচ্ছে না Logo খেলা হবে ২০ তারিখ নৌকা মার্কায় ভোট দিন। Logo নাইক্ষ্যংছড়িতে দেশীয় চোলাই মদ সহ আটক-২ Logo গাজীপুর মহা নগরে আট লক্ষ টাকা মুক্তিপনের দাবীতে অপহরন কারী কে গ্রেপ্তার। Logo মা হওয়ার ইচ্ছা প্রভা’র, পাচ্ছে না সন্তানের বাবা! Logo নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়ল ২২ বছরের পূুরানো সেতু! Logo করোনায় চাকরি হারিয়ে সফল উদ্যোক্তা জবির সাবেক শিক্ষার্থী! Logo ফ্লাইওভার থেকে বাইক নিয়ে ছিটকে পড়লেন যুবক, মর্মান্তিক পরিণতি Logo খালেদাকে বিদেশে নিতে অপেক্ষা সবুজ সংকেতের Logo মাথায় গুলি লেগে র‌্যাব সদস্যের মৃত্যু Logo ২০২৩ সাল থেকে পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষা থাকবে না Logo নবম-দশমে গ্রুপ বিভাজন থাকবে না : শিক্ষামন্ত্রী Logo নতুন ঘরে দুই সন্তানের মা মাহিয়া মাহি Logo মাহির দ্বিতীয় স্বামী রাকিবকে আগে থেকেই চিনতেন প্রথম স্বামী Logo ফোনালাপ ফাঁস নিয়ে সাংবাদিক, বিটিআরসিসহ সবারই সজাগ থাকা দরকার: হাইকোর্ট Logo কল্যাণপুরে হবে হাতিরঝিলের মতো দৃষ্টিনন্দন জলাধার: মেয়র আতিক Logo বুধবার থেকে প্রতিদিন ৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি স্টেশন Logo সাকিবকে ছাড়িয়ে যাওয়ার অপেক্ষায় পরীমনি! Logo পুত্রসন্তানের বাবা কে, জানালেন নুসরাত Logo যে উড়াল সড়কের নাম হবে “আবদুল আলীমে”র নামে

দেশে অক্সিজেন সরবরাহে টান টান অবস্থা

জনপ্রিয় খবর প্রতিনিধি : / ৩৯ বার পঠিত
সময়: মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২১, ২:২৯ পূর্বাহ্ণ

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চলতি মাসের শুরুতে দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ার সময় দিনে সর্বোচ্চ ২০০ থেকে ২২০ টন পর্যন্ত অক্সিজেন সরবরাহ করা হতো। এর মধ্যে ১০০ টন আসত পাশের দেশ ভারত থেকে। বাকিটা দেশেই উৎপাদিত হয়েছে। ২১ এপ্রিলের পর ভারত থেকে অক্সিজেন আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে। তাই দেশে অক্সিজেনের সরবরাহ কমেছে। তবে স্বস্তির বিষয় হচ্ছে, করোনা রোগী কমে আসায় অক্সিজেনের চাহিদাও কমে গেছে। কিন্তু রোগী বাড়লে বড় বিপদের শঙ্কা আছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহকারী কোম্পানিগুলোর দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এটি জানা গেছে। তাঁরা বলছেন, প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী। তাই অক্সিজেনের চাহিদা কমেছে। এ ছাড়া শিল্প অক্সিজেন তৈরি কমিয়ে মেডিকেল অক্সিজেন তৈরি করা হচ্ছে। এতে আপাতত সংকট এড়ানো গেছে।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, করোনার সংক্রমণের আগে দেশের স্বাস্থ্য খাতে অক্সিজেনের চাহিদা ছিল দিনে ১০০ থেকে ১২০ টন। ওই সময় আমদানির প্রয়োজন হতো না। করোনার সংক্রমণ শুরু হলে চাহিদা বাড়তে থাকে। শুরু হয় ভারত থেকে আমদানি। চলতি এপ্রিলের শুরুতে দিনে চাহিদা সর্বোচ্চ ২০০ থেকে ২২০ টনে পৌঁছায়। এখন এটি কমে ১৪০ থেকে ১৫০ টনে দাঁড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত সরবরাহে ঘাটতি তৈরি হয়নি।
জানা গেছে, দেশের সব সরকারি হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ করে বহুজাতিক কোম্পানি লিন্ডে ও দেশীয় কোম্পানি স্পেকট্রা। বেসরকারি হাসপাতালেও তারা সরবরাহ করে। আর শুধু বেসরকারি হাসপাতালে বড় সরবরাহকারী হিসেবে কাজ করছে ইসলাম অক্সিজেন। তিনটি প্রতিষ্ঠান সর্বোচ্চ উৎপাদনের চেষ্টায় দিন–রাত কারখানা চালিয়ে যাচ্ছে। এর বাইরে নতুন করে শিল্প অক্সিজেন তৈরির প্রতিষ্ঠান এ কে অক্সিজেন, ইউনিয়ন অক্সিজেন ও আবুল খায়ের স্টিল মেল্টিং মিল থেকে মেডিকেল অক্সিজেন তৈরির সাময়িক অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এরা কিছু কিছু করে অক্সিজেন সরবরাহ করছে বলে জানা গেছে।

লিন্ডের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, তাঁদের দুটি কারখানায় উৎপাদন সক্ষমতা দিনে ৯০ টন। চাহিদা বাড়ার পর ভারতে অবস্থিত লিন্ডের কারখানা থেকে তাঁরা অক্সিজেন এনেছেন। দিনে সর্বোচ্চ ৩০ থেকে ৪০ টন পর্যন্ত আমদানি করেছে এ কোম্পানি। সব মিলিয়ে দিনে ১১০ থেকে ১২০ টন পর্যন্ত সরবরাহ করেছেন তাঁরা। আমদানি করা তরল অক্সিজেন এখনো মজুত আছে তাঁদের কাছে। তাই এখন দিনে ৯০ টনের কিছু বেশি সরবরাহ করছে লিন্ডে। সরকারি নির্দেশে শিল্পে সরবরাহ বন্ধ রেখেছেন তাঁরা।

দেশে অক্সিজেন সরবরাহে টান টান অবস্থা

ফাইল ছবি

স্পেকট্রা অক্সিজেনের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, সর্বোচ্চ চাহিদার সময় দিনে ৫০ টনের বেশিও সরবরাহ করেছেন তাঁরা। আমদানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এখন দিনে ২০ টনের মতো সরবরাহ করছেন। তবে নতুন একটি কারখানায় উৎপাদনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা। জুনের শেষ দিকে এটি চালু হলে দিনে আরও ৩০ টন অক্সিজেন উৎপাদন করতে পারবে স্পেকট্রা।

দিনে ৪০ টনের মতো অক্সিজেন উৎপাদনের সক্ষমতা আছে ইসলাম অক্সিজেন কোম্পানির। কিন্তু বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের কারণে ৩০ টন উৎপাদন করতে পারে তারা। তারাও ভারত থেকে আমদানি করে দিনে ৫০ টনের মতো সরবরাহ করেছে। ২০ টন আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে। এখন ৩০ টন দিচ্ছে প্রতিদিন। কারখানা সম্প্রসারণের জন ব্যাংকের কাছে অর্থায়ন চেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ বিষয়ে ইসলাম অক্সিজেন কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুস্তাইন বিল্লাহ প্রথম আলোকে বলেন, কারখানাগুলোকে শতভাগ উৎপাদনে থাকার প্রতিবন্ধকতা দূর করতে হবে। গ্যাস–সংযোগ পেলে নিজেরা বিদ্যুৎ উৎপাদন করে ২৪ ঘণ্টা কারখানা সচল রাখা যায়। আর কম সুদে ঋণ দিয়ে কারখানা সম্প্রসারণের ব্যবস্থা করে দিতে পারে সরকার।

বেনাপোল দিয়ে ভারত থেকে অক্সিজেন আসা বন্ধ

বেনাপোল দিয়ে ভারত থেকে অক্সিজেন আসা বন্ধ

দেশের তিনটি বড় অক্সিজেন সরবরাহাকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা জানান, ভাগ্য খুবই ভালো। সংক্রমণ কমার মধ্যে অক্সিজেন আমদানি বন্ধ হয়েছে। ভারতের সংক্রমণ পরিস্থিতি খুব খারাপ। বিভিন্ন দেশ থেকে এখন অক্সিজেন নিচ্ছে দেশটি। তাঁরা বলেন, দেশের প্রথম সারির একটি বেসরকারি হাসপাতালে দিনে গড়ে সাড়ে তিন টন অক্সিজেন লাগে। তাই দেশে উৎপাদন বাড়ানো দরকার। তিনটি প্রতিষ্ঠান চরম চাপের মধ্যে কাজ করছে। কোনো একটি কারখানা বন্ধ হয়ে গেলেই সরবরাহে ঘাটতি তৈরি হতে পারে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল) ফরিদ হোসেন মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, কোথাও অক্সিজেনের ঘাটতি নেই, সরবরাহ নিয়ে কোনো অভিযোগও আসেনি। রোগীর চাপ কমায় অক্সিজেনের চাহিদাও কমেছে। এ ছাড়া ভবিষ্যতের চিন্তা মাথায় রেখে খুব শিগগির শিল্প অক্সিজেন তৈরির কারখানার সঙ্গে বসে কর্মপরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হবে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, দেশে তরল অক্সিজেন উৎপাদনের ঘাটতি থাকলেও গ্যাসীয় অক্সিজেনের ঘাটতি নেই। ভারত থেকে তরল অক্সিজেন আমদানি করা হতো। এটি হাসপাতালের বড় ট্যাংক থেকে পাইপলাইনের মাধ্যমে সরবরাহ করা হয়। আর গ্যাসীয় অক্সিজেন সিলিন্ডারে সরবরাহ করা হয়। বিশেষ পরিস্থিতিতে সিলিন্ডারে করে সংকট মেটানো যাবে বলে মনে করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, সংক্রমণ কমার ধরন পুরোপুরি সঠিক চিত্র দেয় না। কঠোর বিধিনিষেধের কারণে এটি দেখা গেছে। মানুষ এখন আবার রাস্তায় নামছে। সামনে সংক্রমণ আগের চেয়ে দ্বিগুণ হতে পারে। আগে থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া দরকার।

এ বিষয়ে রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার সাবেক পরিচালক বে-নজির আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, শেষ মূহূর্তে চাইলেই অক্সিজেন পাওয়া যাবে না। তাই এখন থেকেই সংক্রমণ পরিস্থিতির প্রক্ষেপণ ও অক্সিজেনের উৎপাদন মূল্যায়ন করে কর্মকৌশল তৈরি করা উচিত। দেশে উৎপাদন বাড়াতে না পারলে ভারতের বিকল্প বাজার খুঁজে দেখা প্রয়োজন।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

ফেসবুকে আমরা

মুজিব শতবর্ষ

সুরক্ষা অনলাই পোটার্ল

বাংলা পত্রিকাসমূহ

ইতিহাসের এই দিনে

বাংলাদেশের ৩৫০ ‍জন এমপিদের তালিকা

বিজ্ঞাপন

Web Deveoped By IT DOMAIN HOST