বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৩৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Logo করোনা পরীক্ষার সূত্র ধরে ১৮ বছরের পলাতক আসামি গ্রেপ্তার Logo হোটেল-রেস্তোরাঁর কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেবে ঢাকা উত্তর সিটি Logo স্পনসর বানানোর নামে ‘চাঁদাবাজি’ Logo বিনা নোটিশেই অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে: মেয়র আতিক Logo উচ্ছেদ অভিযানে মেয়রকে বাধা, ২ মহিলা নেত্রী আটক Logo তাড়াশে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় জরিমানা গুনলেন ৯ জন Logo ধর্ষণের শিকার শিশু: অজুহাতে ভর্তি বাতিল! Logo বাবার মরদেহ দেখে ছেলের মৃত্যু! Logo তুরস্ক প্রেসিডেন্টকে ‘ষাঁড়’ বলায় কারাগারে সাংবাদিক Logo চোখ ধাঁধানো ঢাকা টাঙ্গাইল চার লেন Logo স্বতন্ত্র প্রার্থীদের এলাকা ছাড়া করার নির্দেশ আওয়ামী লীগ নেতার! Logo দুই সন্তান জাপানি মায়ের কাছে থাকবে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত Logo ‘সারোগেট পদ্ধতিতে সন্তানকে স্বাগত জানিয়েছি’ Logo বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তানের গ্রুপে পড়ল বাংলাদেশ Logo আইপিএলে নিলামে সর্বোচ্চ দামে সাকিব-মোস্তাফিজ Logo গভীর রাতে মদ্যপ অবস্থায় বন্ধুসহ স্পর্শিয়া আটক Logo চিত্রনায়ক ইমনকে লাঞ্ছিত, এফডিসিতে তুমুল উত্তেজনা Logo ফের করোনায় আক্রান্ত হলেন পূর্ণিমা Logo হোয়াটসঅ্যাপেও আসছে মেসেজ রিয়্যাকশন ফিচা Logo ধর্ষণ ও পরে শ্বাসরোধে হত্যা নায়িকা শিমুর ডিএনএ টেস্ট করছেন চিকিৎসকরা Logo শাওনের ঘোরাঘুরি Logo আশা করেননি, তবে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন Logo ‘আমাদের বিয়েতে গায়েহলুদ, মেহেদি, নতুন শাড়ি কিছুই ছিল না’ Logo ট্রাফিক পুলিশকে টাকা ছুড়ে মারলেন ক্ষুব্ধ বিদেশি Logo জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ কাল Logo নৌকাকে ছাড়িয়ে গেছে ‘স্বতন্ত্র’ Logo বগুড়ার ১৪ ইউপির ৭টিতে বিএনপি নেতাদের জয় Logo বিনা ভোটে নির্বাচিত হওয়া গণতন্ত্রের জন্য ভালো নয় Logo জনঘনত্ব ঢাকার চার এলাকায় Logo ১১ বছর পরে কন্যা সন্তানের মা হলেন তিশা

যে খুঁটির জোরে এতটা শক্তিশালী মামুনুল!

জনপ্রিয় খবর প্রতিনিধি : / ৮০ বার পঠিত
সময়: শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১, ৫:০৪ অপরাহ্ণ

বর্তমান প্রেক্ষাপট পর্যালোচনায় হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের প্রভাব সংগঠনে কতটুকু তা একেবারেই স্পষ্ট। তবে তার উৎস সম্পর্কে এখনো অনেক প্রশ্নের উত্তরই অধরা। তবে এ সত্য আজ দিনের আলোর মতো পরিষ্কার যে, হেফাজতের সাংগঠনিক সিদ্ধান্তে মামুনুলের প্রভাব প্রবল। কেননা, বর্তমান কমিটির অনেক নেতা রীতিমতো ‘তোয়াজ’ করে চলেন তাকে! বর্তমানে রিমান্ডে থাকা মামুনুলসহ একাধিক হেফাজত নেতার কাছ থেকে তার প্রভাব বলয়ের কারণ খুঁজছেন গোয়েন্দারা। আর তাতেই বেরিয়ে এসেছে নানান চাঞ্চল্যকর তথ্য। হেফাজত নেতাদের ভাষ্য, সংগঠনে শুরু থেকেই দুটি ধারা রয়েছে। এক ধারার নেতারা আল্লাহ-রাসুলের (সা.) তরিকা অনুযায়ী নিরিবিলি জীবন যাপনে অভ্যস্ত। যারা যেকোনো কর্মসূচিকে ঘিরে নাশকতা ও উগ্রপন্থার বিরুদ্ধে। অন্যদিকে আরেকটি ধারার নেতারা ধর্মের অপব্যাখ্যা, কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য ও বিতর্কিত রাজনৈতিক মন্তব্য করে সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়ান। যে ধারার সমর্থকদের সাথে বিএনপি-জামায়াতের কোনো কোনো নেতার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতারও অভিযোগ রয়েছে। আবার অনেকে হেফাজতের আড়ালে নিজেরাই জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বলে অভিযোগ রয়েছে। তারা বলছেন, হেফাজতের উগ্রপন্থী এ গ্রুপটির নেতা হিসেবে অনেকদিন ধরেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন মামুনুল। কোনো কর্মসূচির ডাক দেওয়া হলেই মামুনুল তা ঘিরে জলঘোলা করে পরিস্থিতি ভিন্নখাতে নেওয়ার পাঁয়তারা চালান। হেফাজতের একটি অংশ তাকে এতে সহযোগিতা করে আসছে। তদন্ত-সংশ্নিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা এসব তথ্য জানান। ২০২০ সালে মোহাম্মদপুর থানায় দায়ের করা একটি মামলায় মামুনুলকে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি হারুন অর রশিদ বলেন, ২০১৩ সালের পর ৫মে শাপলা চত্বরের ঘটনা ছাড়াও নানা সময় বিতর্কিত মন্তব্য করে আসছিলেন মামুনুল। সরকার পালানোর পথ পাবে না- এমন হুমকিও দিয়েছিলেন। নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে দেওয়া কর্মসূচিতেও উগ্র আচরণ করেন তিনি। কারা পেছন থেকে তার এসব বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে ইন্ধন যোগাতো, তাদের খুঁজে বের করা হবে। তদন্তের সঙ্গে যুক্ত আরেকজন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, শাপলা চত্বরের মঞ্চ থেকে আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফের নাম ধরেই হুমকি দেন মামুনুল। দেশের বিভিন্ন জায়গায় ওয়াজ ও হেফাজতের অন্যান্য কর্মসূচিতে মামুনুলই প্রথম নানা ইস্যুতে বিতর্কের জন্ম দিতেন।

কেন তিনি বারবার এমন উগ্র ভাষণ দিতেন- গোয়েন্দাদের এমন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন মামুনুল। মামুনুল জানান, সংগঠনের মধ্যে সবচেয়ে ‘জনপ্রিয়’ হওয়ার ইচ্ছা, এমনকি কখনো নিজেই জোশের বশে তিনি এসব কথা বলে ফেলতেন। তার ভাষ্য, হেফাজত নয়, খেলাফতে মজলিসের নেতা হিসেবে রাজনৈতিক বক্তব্য দিতেন তিনি। সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা আমির শাহ আহমদ শফীর আমলেও মামুনুলের তেমন প্রভাব ছিল না। তবে শফীর মৃত্যুর পর কার্যত সংগঠনটিকে ‘হাতের পুতুলে’ পরিণত করেন তিনি। এর অন্যতম কারণ মামুনুলের সঙ্গে হেফাজতের বর্তমান আমির জুনায়েদ বাবুনগরীর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। আবার হেফাজতের বর্তমান কমিটির অনেক সদস্যও মামুনুল-ঘরানার।

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, হাবিবুল্লাহ আজাদী, মনির হোসেন, জুনায়েদ আল হাবিব, খালেদ, নাসির উদ্দিন মনির, সাখাওয়াত হোসেন, আতিকুল্লাহ, মোহাম্মদ জালাল প্রমুখের সঙ্গে মামুনুলের ‘বিশেষ সম্পর্ক’ রয়েছে বলে জানা গেছে। বাবুনগরীসহ সংগঠনটির প্রভাবশালী অনেকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার কারণে একাধিক কথিত বিয়েকাণ্ড ফাঁস হওয়ার পরও তার বিরুদ্ধে কোনো সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়নি হেফাজত। চলমান ইস্যু নিয়ে হেফাজত নেতাদের বৈঠকে দু-একজন নেতা মামুনুলকাণ্ডের বিষয়টি আলোচনায় আনলেও বাবুনগরীর হস্তক্ষেপে তা বেশি দূর এগোয়নি। এমনকি শুরুর দিকে মামুনুলের সমর্থনে একাধিক বক্তৃতা ও বিবৃতি প্রকাশ এবং সংবাদ সম্মেলন করেছে হেফাজত। তবে বিতর্কিত এই নেতা যখন স্বীকার করেন সব ফোনালাপ তারই ছিল- তখন কৌশলী ভূমিকা নিয়ে ‘ব্যক্তিগত ব্যাপার’ বলে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন সংগঠনটির নেতারা। তবে মামুনুলকে নিয়ে হেফাজতের কারও কারও মধ্যে চরম অস্বত্বি কাজ করছে।

হেফাজতের কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে খোঁজ রাখেন এমন এক কর্মকর্তা জানান, পারিবারিক প্রভাবকেও মামুনুল হক হেফাজতের ভেতরে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় ব্যবহার করেছেন। তার বাবা আজিজুল হক খেলাফত মজলিসের প্রতিষ্ঠাতা। মামুনুলের বড় ভাই মাহফুজুল হক বেফাকুল মাদ্রাসিল আরাবিয়ার মহাসচিব। তিনি মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া ও আরাবিয়া মাদ্রাসারও প্রধান।

পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা জানান, হেফাজতের নেতৃত্বের যে অংশটির রাষ্ট্রক্ষমতার অংশ হওয়ার উচ্চাভিলাষ রয়েছে, তাদের নেতৃত্বেও রয়েছেন মামুনুল। সংগঠনের অনেক কর্মসূচিতে কৌশল নির্ধারণে তার একক ভূমিকা ছিলো। আবার অঢেল সম্পদের মালিক হওয়ায় হেফাজতের ভেতরেও তাকে আলাদাভাবে দেখা হতো। এখন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি তার সম্পদের উৎস খতিয়ে দেখছে। সম্পদের হিসাবে গরমিল পেলে তাকে মানি লন্ডারিং আইনের মামলারও মুখোমুখি হতে হবে। হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা যুগ্ম মহাসচিব মাইনুদ্দীন রুহী বলেন, বাবুনগরীর কমিটিকে অনেকে মামুনুলের পকেট কমিটি হিসেবে অভিহিত করে। এখানে মামুনুলের খাস লোক রয়েছে ৪০-৫০ জন। মামুনুল ও তার সাঙ্গোপাঙ্গরা বর্তমান হেফাজতকে জিম্মি করে রেখেছে। আজ তারা ২০ হাজার কওমি মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রীকে সরকার ও বুদ্ধিজীবীদের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। আহমদ শফী বেঁচে থাকতেও তার বিরুদ্ধে কামরাঙ্গীরচর ও বারিধারায় গোপন বৈঠক করে ষড়যন্ত্র করেছিল মামুনুল।

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও সংবাদ

Archive Calendar

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

মুজিব শতবর্ষ

সুরক্ষা অনলাই পোটার্ল

বাংলা পত্রিকাসমূহ

ইতিহাসের এই দিনে

বাংলাদেশের ৩৫০ ‍জন এমপিদের তালিকা

বিজ্ঞাপন

Web Deveoped By IT DOMAIN HOST